বাংলা ভাষার উৎপত্তি ও বিকাশ

বাংলা ভাষার উৎপত্তি ও বিকাশ

বাংলা ভাষার উৎপত্তি নিয়ে পন্ডিতদের মধ্যে মতভেদ রয়েছ । বাংলার আদি অধিবাসীদের ভাষা ছিল অস্ট্রিক জাতির। ভারতীয় উপমহাদেশের আঞ্চলিক ভাষাগুলোর আদিম উৎস অনার্যদের আগমনের পর এ ভাষা ধীরে ধীরে হারিয়ে যায়। অনেকের ধারণা সংস্কৃত ভাষা থেকেই বাংলা ভাষার উদ্ভব, তবে আধুনিক ভাসষবিদগণ এ মতের বিরোধী। আর্যদের ভাষার নাম প্রচীন ‘বৈদিক ভাষা’। আর্যদের এ ভাষাকে পরবর্তীতে সংস্কার করা হয বলে এ ভাষার নাম হয় সংস্কৃত ভাষা । বেদের ভাষাকেও  বৈদিক ভাষা বলে। পরবতীকালে পন্ডিতগন বৈদিক ভাষাকে সংস্কার কওরে একটি সাহিত্যের ভাষার রূপ দেন।  সংস্কারজাত এ  নতুন ভাষাই হল সংস্কৃত ভাষা। কারো ধারনা- সংস্কৃত ভাষা থেকে বাংলা ভাষার জন্ম। কিন্তু আধুনিক পণ্ডিতগণের মতে, সংস্কৃত ভাষা, থেকে বাংলা ভাষার জন্ম হয়নি। ভাষার ইতিহাস অনুসন্ধানে জানা যায়, অভিজাত শ্রেণীর মুখের ভাষা ছি ‘সংস্কৃত’ । আর যারা ‘প্রাকৃত জন’ অর্থাৎ সাধারণ লোক তারা সংস্কৃত ভাষার কথা বলতেন না । তাদের মুখের ভাষা ছিল প্রাকৃত ভাষা কালক্রমে আরও প্রাকৃত হয়ে ‘মাগ্ধী প্রাকৃত’ রূপ লাভ করে। এই মাগধী রূপের অপভ্রংশ থেকে বাংলা ভাষার উৎপত্তি। ড. মুহাম্মাদ শহীদুল্লাহ এর মতে, মাগধী প্রাকৃতের প্রাচ্যরূপ গৌড়ী প্রকৃত। গোড়ীয় প্রাকৃত থেকে গৌড়ীয় অপভ্রংশ এবং এ গোড়ীয় অপভ্রংশ থেকে বাংলা ভাষার উৎপত্তি হয়েছে।

বাংলাভাষার উৎপত্তিকাল, বাংলা ভাষার বয়স এবং বাংলা ভাষার আদিকাল সম্পর্কে বিভিন্ন পন্ডিত বিভিন্ন মতামত দিয়েছেন।

বাংলা ভাষার উৎপত্তিকালঃ 

ড. মুহাম্মাদ শহীদুল্লাহ- এর মতেঃ খ্রিস্টীয় ১০ম শতকে (৬৫০ খ্রিঃ)।

ড. সুনীতিকুমার চট্রোপাধ্যায়সহ অধিকাংশের মতে- খ্রিস্ট্রীয় ১০ম শতকে (৯৫০ খ্রিঃ)।

বাংলা ভাষার আদিস্তরের স্থিতিকাল-

ড. সুনীতিকুমার চট্রোপাধ্যাএর মতেঃ দশম থেকে দ্বাদশ শতাব্দী (৯৫০ খ্রিঃ -১২০০ খ্রিঃ)।

ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ- এর মতেঃ  খ্রিস্ট্রীয় ৭ম শতকে দ্বাদশ শতাব্দী (৬৫০-১২০০)।

বাংলা ভাষার উৎপত্তিঃ ড. শহীদুল্লাহ – এর মতেঃ গৌড়ীয় প্রাকৃত হতে।

প্রাকৃত ভাষা থেকে সৃষ্ট ভাষাকে দুইভাগে ভাগ করা যায়-

১. অপভ্রংশ ও

২. অন্যটি পালি ।

এ যুগে অপভ্রংশ ভাষা থেকে নতুন নতুন ভাষা সৃষ্টি হতে থাকে । এভাবেই অপভ্র্রংশ ভাষা থেকে সৃষ্টি হয় বাংলা ভাষা । ড: মুহম্মদ শহীদুল্লার মতে, খ্রিষ্টীয় সপ্তম মতাব্ধীতে বাংলা ভাষার উদ্ভব , যদিও অধিকাংশের মত এর সাখে মেলে না । অধিকাংশ ভাষাবিদ মনে করেন খ্রিষ্টীয় দশম শতাব্দীতে বাংলা ভাষা উৎপত্তি লাভ করে । ভাষা গোষ্ঠীর বিচারে বাংলা ভাষা ইন্দো-ইউরোপীয়ান ভাষার অন্তর্গত। ড: মুহম্মদ শহীদুল্লাহর মতে নিম্নরূপ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বাংলা ভাষা গঠিত হয়েছে।


বাঙালি জাতির উদ্ভব ও পরিচিতি সম্পর্কে পড়ুন।

1 thought on “বাংলা ভাষার উৎপত্তি ও বিকাশ”

  1. Pingback: ইন্দো ইউরোপীয় বলতে কি বুঝায়? ইন্দো ইউরোপীয় ভাষা বংশের শাখা

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!